Sunday, August 16th, 2020

জমি, বসতভিটা, মানুষ, পানিসহ দেশরক্ষা এবং প্রাকৃতিক সম্পদের ওপর সর্বজনের মালিকানা ও কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার লড়াই ও সংগ্রামের চৌদ্দ বছর (২০০৬-২০২০)

উন্নয়নের নামে প্রাণ-প্রকৃতি-সম্পদ, জনস্বাস্থ্য-জনজীবন ও জীবিকার বিপরীতে মুনাফা-অন্ধ তৎপরতায় বিশ্বের বাস্তুসংস্থান, নদী-সমুদ্র-জলবায়ু আক্রান্ত। তথাকথিত উন্নয়নের এই প্রাণবিনাশী মুনাফালোভী চরিত্রের কারণে বিশ্ব আজ কোভিড ১৯ এর মতো মহামারির শিকার। বাংলাদেশেও করোনা বিপর্যয়ে কয়েক কোটি মানুষ কাজ-খাদ্য-শিক্ষা-চিকিৎসা সংকটে আক্রান্ত। এই ধারায় বিশ্ব চলতে থাকলে সামনে আরও ভয়াবহ বিপর্যয় আসবে, বাংলাদেশের জন্য বিপদ হবে আরও বেশি।
তাই যেসব প্রকল্প প্রাণ প্রকৃতি, জনস্বাস্থ্য, প্রাকৃতিক সম্পদ এবং জননিরাপত্তা বিপন্ন করে সেগুলো প্রত্যাখ্যান করে মুনাফার বদলে মানুষকে গুরুত্ব দেবার দাবি উঠেছে বিশ্বজুড়ে। ফুলবাড়ী আন্দোলন এই দাবিতেই গণঅভ্যুত্থান তৈরি করেছিলো, আর বুকের রক্তে, সংগ্রামে ১৪ বছর ধরে প্রতিরোধ জাগ্রত রেখেছে। কিন্তু চক্রান্ত এখনও চলছে, তাই প্রতিরোধও জোরদার করতে হবে। ফুলবাড়ীর প্রতিরোধ চেতনা দিয়ে বাংলাদেশকে নতুন দিশা দিতে হবে।

সারাদেশে ২৬ আগস্ট ২০২০ বুধবার ফুলবাড়ী দিবস পালন করুন
কেন্দ্রীয় কর্মসূচি
সকাল ১০টা : শ্রদ্ধা নিবেদন, ফুলবাড়ী শহীদ স্মৃতিস্তম্ভ
সকাল ১১টা: প্রতিবাদ সভা, নিমতলা মোড়, ফুলবাড়ী, দিনাজপুর।
ঢাকাসহ সারাদেশে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও সমাবেশ।
লন্ডনসহ বিশ্বের বিভিন্ন শহরে সভা-সমাবেশ। দেশে বিদেশে অনলাইনে আলোচনা সভা।
কর্মসূচি পালন করুন ও দাবি তুলুন
*এশিয়া এনার্জি (জিসিএম) কে দেশ থেকে বহিষ্কার, খুনি-জালিয়াত ও দালালদের বিচারসহ রক্তে লেখা ফুলবাড়ী চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন কর। চীন-ভারত-দেশি কোম্পানির মাধ্যমে ফুলবাড়ী বড়পুকুরিয়ায় উন্মুক্ত খনি করার চক্রান্ত বন্ধ কর।
*ফুলবাড়ী নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার কর।
*বড়পুকুরিয়া কয়লাখনি, মধ্যপাড়া গ্রানাইড মাইন এ কয়লা-পাথর লুণ্ঠনকারীদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন কর। শ্রমিকদের দাবি মেনে নাও, হয়রানি বন্ধ কর।
*রামপাল-রূপপুরসহ প্রাণবিনাশী স্বাস্থ্যঝুঁকিপূর্ণ প্রকল্প বাতিল করে করোনাভাইরাস মোকাবেলাসহ সার্বজনীন স্বাস্থ্যসেবাখাতে বরাদ্দ দাও।
*উত্তরবঙ্গসহ সারাদেশে সুলভে সার্বক্ষণিক গ্যাস ও বিদ্যুৎ নিশ্চিত করতে জাতীয় কমিটি প্রস্তাবিত মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন কর।