Tuesday, September 4th, 2018

বরগুণায় দখলদার লুটেরা কোম্পানির বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করুন

তেল-গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ ও সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ আজ এক বিবৃতিতে বলেছেন-

‘সরকার লুটেরা গোষ্ঠীর হাতে কীভাবে নিজেকে সমর্পণ করেছে, কীভাবে সরকারের ভেতর থেকে প্রত্যক্ষ ইন্ধন পেয়ে লুটেরা দখলদার গোষ্ঠী দেশের বিদ্যমান আইন অগ্রাহ্য করে পরিবেশ বিপর্যয় করছে, দরিদ্র জনগণের জীবনে বিভীষিকা ডেকে আনছে তার সর্বশেষ সাক্ষাৎ দৃষ্টান্ত বরগুনার কথিত বিদ্যুৎ কেন্দ্র। কোনো পরিবেশ সমীক্ষা ছাড়াই, আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে, দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শ্বাসমূলীয় বন টেংরাগিরির ৪ কিলোমিটারের মধ্যে এবং আরেকটি সংরক্ষিত বন লালদিয়া বনের ১ কিলোমিটারের মধ্যে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠার নামে একটি কোম্পানি জমি দখল করছে। এখানকার ৩১০ একর জমি খাসজমি হিসেবে ভূমিহীনদের আগেই বরাদ্দ দেওয়া হয়েছিল। তাদের ওপর হামলা মামলা এবং হয়রানি ভয়ভীতি দেখিয়ে একের পর এক জমি দখল করছে একটি কোম্পানি। আইনী কোনো ভিত্তি না থাকলেও তাদের পক্ষে পুলিশ কাজ করছে, হামলা করছে গরীব মানুষের ওপর।

‘আমরা মনে করি সুন্দরবন বিনাশ থেকে শুরু করে প্রাণপ্রকৃতি মানুষের নিরাপত্তা অগ্রাহ্য করে, জনস্বার্থ বিরোধী সরকারের বিভিন্ন প্রকল্প অন্যান্য লুটেরাদেরকেও উৎসাহিত করছে, সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে কমিশনভোগীদের কারণে স্বেচ্ছাচারীভাবে বাংলাদেশে সব সর্বনাশা প্রকল্প গ্রহণ করা হচ্ছে। আমরা অবিলম্বে বরগুণায় এই দখলদার কোম্পানি ও তার পৃষ্ঠপোষকদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছি। একইসঙ্গে দায়মুক্তি আইন ও রামপাল চুক্তি বাতিল করে সুন্দরবনের সংলগ্ন এলাকার দখলদারদের উচ্ছেদ করবার জন্য সরকারের প্রতি দাবি জানাচ্ছি।’