Saturday, November 24th, 2012

ফুলবাড়ীর লড়াইয়ের পাশে সারাদেশ

২৪ নভেম্বর শনিবার বিকেল ৩.৩০ মিনিটে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির উদ্যোগে গতকাল ফুলবাড়ীর সমাবেশে প্রশাসনের ১৪৪ ধারা জারির প্রতিবাদ ও ফুলবাড়ী জনগণের ন্যায়সঙ্গত দাবি আদায়ে ফুলবাড়ী হরতাল সমর্থনে মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ, সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ। এছাড়াও সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরো সদস্য বিমল বিশ্বাস, রাগীব হাসান মুন্না, বাসদের কেন্দ্রীয় নেতা জাহেদুল হক মিলু, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের জোনায়েদ সাকী, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টি মোশরেফা মিশু, কমিউনিস্ট লীগের শামীম ঈমাম, ওয়ার্কার্স পার্টি পুনর্গঠিত-এর আজিজুর রহমান, জাতীয় গণফ্রন্টের আবু তাহের, প্রকৌশলী কল্লোল মোস্তফা, অরুপ রাহী, জাতীয় কমিটির ঢাকা মহানগর নেতা খান আসাদুজ্জামান মাসুম, জুলফিকার আলী, জাহাঙ্গীর আলম ফজলু, মোস্তাক আহমেদ, আবু বকর রিপন, মাসুদ খান প্রমুখ।

সমাবেশে প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ বলেন, ২৩ ও ২৪ নভেম্বর ফুলবাড়ী জনগণের লড়াই প্রমাণ করে যে জনগণের স্বার্থ বিরোধী কয়লা সম্পদ লুটপাটের সিদ্ধান্ত অগণতান্ত্রিক ১৪৪ ধারা জারি করে বাস্তবায়ন করা যাবে না। সাম্রাজ্যবাদ যে দিকে লোভী নজর দেয় সেখানেই মানুষের সম্পদ ভস্মিভূত হয়। ফুলবাড়ী জনগণ তা হতে দিবে না।
অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, ফুলবাড়ীর হরতাল আওয়ামী লীগ-বিএনপির জনশূন্য সন্ত্রাস সৃষ্টিকারী ক্ষমতালোভী হরতাল নয়। হাজার হাজার মানুষের স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণে এই হরতাল জনগণের শক্তির প্রকাশ প্রমাণ হয়েছে। এশিয়া-এনার্জি বা লুটেরা কোনো গোষ্ঠীর সম্পদ দখল ও লুণ্ঠনের কোনো চক্রান্তই সফল হবে না। জনগণ তার সম্পদ ও জীবন রক্ষা করবেই।

নেতৃবৃন্দ বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সার্কুলার প্রত্যাহার না করায় হরতাল আগামীকাল পর্যন্ত বহাল থাকবে। ফুলবাড়ী চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন ও এশিয়া-এনার্জিকে বাংলাদেশ থেকে বহিষ্কারসহ জাতীয় কমিটির ৭ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত সারাদেশে আন্দোলন সংগ্রাম চলবে।
নেতৃবৃন্দ ২৫ নভেম্বর ফুলবাড়ীর হরতাল সফলভাবে পালন করার জন্য ফুলবাড়ী জনগণকে রাজ পথে থাকার আহ্বান জানান।