Monday, August 26th, 2019

জীবন-জীবিকা বসতবাড়ি ও দেশ রক্ষায় এশিয়া এনার্জি (জিসিএম)-কে দেশ থেকে বহিষ্কার ও দালালদের বিচারসহ রক্তে লেখা ফুলবাড়ীর পূর্ণ বাস্তবায়ন এবং ফুলবাড়ী নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি

আজ ২৬ আগস্ট ২০১৯ ঐতিহাসিক “ফুলবাড়ী দিবস” (২০০৬ সালে)। দিবসটিতে শহীদদের স্মরণে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ঢাকা নগর শাখার উদ্যোগে সকাল সাড়ে ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে পুষ্পমাল্য অর্পণ শেষে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ঢাকা নগরের সমন্বয়ক জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে ও যুগ্মসমন্বয়ক আকবর খানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মোশারফ হোসেন নান্নু, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, সিপিবি কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন। এসময়ে আরও উপস্থিত ছিলেন সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহাম্মদ শাহ আলম, গণসংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা বাচ্চু ভূঁইয়া, বাসদ (মাহবুব)-এর কেন্দ্রীয় নেতা মঈন উদ্দিন চৌধুরী লিটনসহ নারী সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ ও ছাত্র সংগঠনসমূহের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, এশিয়াএনার্জি (জিসিএম)’র সাথে চীনা বা ভারতীয় বা দেশি কোম্পানি নিয়ে উত্তরবঙ্গ ধ্বংস করে উন্মুক্ত খনির নতুন চক্রান্ত বন্ধ করতে হবে। বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির দুর্নীতিবাজদের বিচার করতে হবে। শ্রমিকদের যৌক্তিক দাবি মেনে নিতে হবে। উত্তরবঙ্গসহ সারাদেশে সুলভে সার্বক্ষণিক গ্যাস ও বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে জাতীয় কমিটির মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ জীবন-জীবিকা বসতবাড়ি ও দেশ রক্ষায় এশিয়া এনার্জি (জিসিএম)-কে দেশ থেকে বহিষ্কার ও দালালদের বিচারসহ রক্তে লেখা ফুলবাড়ী চুক্তি পূর্ণ বাস্তবায়ন এবং ফুলবাড়ী নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।