Sunday, January 8th, 2017

সুন্দরবন রক্ষায় ২৬ জানুয়ারি ঢাকা মহানগরীতে অর্ধদিবস হরতালের আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় কমিটি

‘সুন্দরবন রক্ষায়’ রামপাল প্রকল্পসহ সুন্দরবনবিনাশী সকল চুক্তি বাতিল, বিদ্যুৎ-গ্যাস সমস্যা সমাধানে ৭ দফা চুক্তি বাস্তবায়নে’ তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহূত আগামী ২৬ জানুয়ারি ২০১৭, সকাল (৬টা থেকে ২টা) অর্ধদিবস হরতালের সমর্থনে আজ ৮ জানুয়ারি ২০১৭, রোববার, বিকেল সাড়ে ৩টায় ঢাকার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশে ও সমাবেশ শেষে জাতীয় প্রেসক্লাব থেকে মতিঝিল পর্যন্ত পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় কমিটি ঢাকা নগরের সমন্বয়ক জুলফিকার আলীর সভাপতিত্বে ও আকবর খানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন রুহিন হোসেন প্রিন্স, বজলুর রশিদ ফিরোজ, জোনায়েদ সাকী, মানস নন্দী, খান আসাদুজ্জামান মাসুম, মনিরউদ্দিন পাপ্পু, সাইফুজ্জামান শাকন, অনুপ কুন্ডু, মমিনুর রহমান মোমিন ও জামাল শিকদার প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, রামপাল-ওরিয়ন কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পসহ শতাধিক বাণিজ্যিক বনগ্রাসী-ভূমিগ্রাসী প্রকল্প ঘিরে ফেলেছে বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনকে। দেশ-বিদেশের সচেতন মানুষ, ইউনেস্কোর উদ্বেগ-বিরোধিতা অগ্রাহ্য করে দেশি-বিদেশি লুটেরাদের স্বার্থে রামপাল প্রকল্পের কাজ এগিয়ে নিচ্ছে সরকার। এই প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে সুন্দরবনের মধ্য দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার টন কয়লার জাহাজ চলাচল করবে। প্রকল্পে প্রতিবছর ৪৭ লাখ টন কয়লা পোড়ানো হবে। এর ফলে তৈরি হবে ৮ লাখ টন ছাইসহ বিষাক্ত দ্রব্য। যা প্রাণ-প্রকৃতি ধ্বংস করবে, বায়ু-মাটি দূষণ হবে, ওই অঞ্চলের লাখ লাখ মানুষ তাদের জীবিকা হারাবে, প্রকৃতিক বিপর্যয় ঘটাবে।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, ‘সুন্দরবন রক্ষায় আমাদের ঐক্যবদ্ধ লড়াই ছাড়া পথ নেই। তাই আসুন আগামী ২৬ জানুয়ারি ২০১৭, বৃহস্পতিবার, সকাল ৬টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত নিজ নিজ গাড়ি, কাজ ও প্রতিষ্ঠান বন্ধ রেখে সর্বাত্মক অর্ধদিবস হরতাল পালন করি। দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র রুখে, সুন্দরবন রক্ষায় দায়িত্বশীল আচরণ করতে সরকারকে বাধ্য করি।